নাম শফিকুল ইসলাম। বয়স ৪০ (চল্লিশ)। আজ থেকে প্রায় পাঁচ/ছয় বছর আগে এসেছিলেন ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার কালুখালী গ্রামে। ভিটামাটি হীন অসহায় মানুষটির পরিবারের সদস্য চার জন। স্ত্রী হেনা বেগম (৩৬),মেয়ে সাইমা ইসলাম(১৩) ও ছেলে সিয়াম (৭)। স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় পেলেন থাকার জায়গা। শুরু করলেন হোটেল ব্যবসা। কি আন্তরিক তার ব্যবহার, মুখের কথায় যেনো মধু ঝরে পড়ে সাথে দারিদ্রের ছাপ। স্থানীয় লোকজনের সাথে তার আন্তরিকতার সীমা অতিক্রম করে ফ্রিতে মিষ্টি খাওয়ানো যেনো তার নিত্যদিনের কাজ। স্থানীয় এক ব্যক্তির জমিতে তুললেন টিনের ঘর। পরিবার পরিজন নিয়ে শুখের সংসার।সে হোটেলের মালিক থাকা অবস্থায় মানুষকে বেশি বেশি ভালোবাসা দেখিয়ে ও মন জয় করে আনুমানিক ১০-১৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

সাম্প্রতিক ১২-১২-২০২০ শনিবার তারিখে তার স্ত্রীর সাথে ঝগড়া, ফ্যাসাদ হয়েছে এই অপপ্রচার করে মানুষের মাঝে। পরে গোপনে তার স্ত্রী হেনা বেগম (৩৬), মেয়ে সাইমা ইসলাম (১৩) ও ছেলে সিয়াম ইসলাম (৭) সহ একটি টিভি মনিটর ও কিছু ব্যবহৃত পোশাক ব্যাগের ভিতর ঢুকিয়ে নিয়ে চলে গেছে। তারপর ১৩-১২-২০২০ রবিবার আনুমানিক সকাল ৮ টার দিকে আব্দুল মমিন (মোঙ্লা)৫৬ নামের এই ব্যক্তির কাছ থেকে বাইসাইকেল নিয়ে পাশের গ্রাম কাঠালিয়া গ্রামে যাওয়ার কথা বলে পালিয়ে গেছে। শফিকুল (৪০) নামের এই যুবকের স্হায়ী ঠিকানা যশোর জেলার, শার্শা থানার অন্তর্ভুক্ত গোগা,কালীয়ানি গ্রাম। তার শশুর বাড়ি মানিকগঞ্জ জেলায়। শফিকুল ইসলাম (৪০) নামের এই যুবকটি মানুষের সাথে ভালোবাসা দেখিয়ে লাখ লাখ টাকা নিয়ে সর্বশান্ত করে সকলের চোখ ফাকি দিয়ে পালিয়ে গেছে। বর্তমানে সে এখন সবার নজরের বাইরে

এই প্রতারকের সন্ধান কেউ দিতে পারলে তাকে পুরষ্কৃত করা হবে। যোগাযোগ করুন

Ak Joardar Kaligonj Jhenaidah

মোবাইল : 01726037020

সবাই বেশি বেশি কমেন্ট, শেয়ার করে সর্বত্র ছড়িয়ে দিয়ে প্রতারক কে খুজে বের করি।

বি;দ্র – সকলেই এই প্রতারক কে চিনে রাখুন,সাবধান থাকুন। হয়তো আবার এমন কোথাও না কোথাও গিয়ে এমন ভালোবাসা দেখিয়ে আস্তানা গড়তে পারে।

So be carefully..

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here